সবাইকে স্বাগতম জানাচ্ছি আজকের ওয়ার্ডপ্রেস টিউটোরিয়ালে। আজকে আমরা শিখবো কিভাবে ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে থিম এবং প্লাগিন ইন্সটল করা যায়। তার আগে থিম এবং প্লাগিন সম্পর্কে কিছু আলোচনা করে নিব।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম কি?

ওয়ার্ডপ্রেস সাইটের প্রাণ হল থিম। একটি ওয়ার্ডপ্রেস সাইটে কি কি ফিচার থাকবে এবং ডিজাইনটা কেমন হবে টা নির্ভর করে থিমের উপর। ওয়ার্ডপ্রেস থিম একটি এক্সটারনাল ফাইল, যা ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার পরে আপলোড করতে হয়। ওয়ার্ডপ্রেস ইন্সটল করার সময় ওয়ার্ডপ্রেসের ২-৩ টি ডিফল্ট থিম দেয়া থাকে, যা আপনার চাহিদা মেটাতে অক্ষমও হতে পারে কিংবা সেগুলির ডিজাইন আপনার কাছে নাও পছন্দ হতে পারে। তাই আপনাকে ব্যবহার করতে হবে এক্সটারনাল থিম, যা আপনি কোনো থিম ডেভেলপার এর কাছ থেকে বানিয়ে নিতে পারেন অথবা ইন্টারনেট থেকে সংগ্রহ করতে পারেন।

ইন্টারনেটে থিম কিনতে পাওয়া যায়, যেখানে বাঘা বাঘা ডেভেলপাররা থিম তৈরি করে বিক্রির জন্য রেখেছেন। অথবা অনেকে ফ্রিতে থিম দেয়, যেমন ওয়ার্ডপ্রেসের নিজস্ব থিম ডাইরেক্টরি থেকে ১৯৪৬ এর অধিক থিম ফ্রিতে ডাউনলোড করতে পারবেন এবং আপনার সাইটে ব্যবহার করতে পারবেন। ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডাইরেক্টরি এখানে

ওয়ার্ডপ্রেসের এই থিম ফিচারটি থাকার ফলে ওয়েবসাইটকে মনের মত সাজিয়ে তোলা যায় এবং বিভিন্ন ফিচার তৈরি করা যায়। যা অবশ্যই একটি ইউজার ফ্রেন্ডলি।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন কি?

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন হল ওয়ার্ডপ্রেসের এমন একটি সিস্টেম যার মাধ্যমে আপনি আপনার ওয়েবসাইটে নতুন নতুন ফিচার এবং ফাংশন যোগ করতে পারবেন। থিমের মতই প্লাগিনও ওয়ার্ডপ্রেস সেটাপের পর আপলোড করতে হয়। আপনি হয়ত আপনার সাইটে একটি নতুন ফিচার বা ফাংশন যোগ করতে চাচ্ছেন, যেমনঃ আপনি চাচ্ছেন এমন একটি অপশন রাখতে চাচ্ছেন যার মাধ্যমে ভিজিটররা আপনার সাথে যোগাযোগ করতে পারবে। এই কাজটি আপনি যদি কোডিং এর মাধ্যমে করতে চান তাহলে আপনার কোডিং সম্পর্কে প্রচুর জ্ঞান থাকতে হবে। কিন্তু আপনি ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিনের মাধ্যমে এটি খুব সহজেই করতে পারবেন কোন কোডিং জ্ঞান ছাড়াই। একেকটিওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন মূলত একেকটি ফাংশন এর স্নিপেট, যা কোন কোডার একটি ফাংশন তৈরি করেছে এবং সে কোডটি প্লাগিনের মাধ্যমে অন্যের ব্যবহার উপযোগী করে তোলা হয়েছে।

অর্থাৎ, আপনি আপনার সাইটে একটি নতুন ফিচার যুক্ত করার জন্য যে কোডগুলি লিখতেন, সেগুলি আগেই কোন ডেভেলপার লিখে রেখেছেন। যা আপনি প্লাগিনের মাধ্যমে আপনার সাইটে যুক্ত করতে পারবেন। এমন কোন কাজ নেই যে আপনি প্লাগিনের মাধ্যমে করতে পারবেন না।

থিমের মত প্লাগিনও কিনতে পাওয়া যায় কিংবা ফ্রিতে পাওয়া যায়। প্লাগিনের জন্য ওয়ার্ডপ্রেসের রয়েছে ২৬,৫০০ এর অধিক প্লাগিন সমৃদ্ধ ফ্রি ডাইরেক্টরি। ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ডাইরেক্টরি এখানে

আশা করি ওয়ার্ডপ্রেস থিম এবং প্লাগিন সম্পর্কে মোটামুটি ধারনা পেয়েছেন। পরবর্তীতে আরও বিস্তারিত আলোচনা করা হবে। এখন তাহলে দেখা যাক কিভাবে থিম এবং প্লাগিন ইন্সটল করবেন।

ওয়ার্ডপ্রেস থিম ইন্সটল পদ্ধতি

ওয়ার্ডপ্রেস থিম ডাইরেক্টরি অথবা অন্য কোন জায়গা থেকে একটি পছন্দমত থিম ডাউনলোড করে নিন। এখন আপনার ওয়েবসাইটের ড্যাসবোর্ডে লগিন করুন। তারপর নিচের ধাপ গুলি সম্পন্ন করুনঃ

  • Appearance থেকে Theme মেনুতে যান।
  • Install ট্যাব এ ক্লিক করুন।
  • এখানে কয়েকটি অপশন দেখতে পাবেন (Search | Upload | Featured | Newest | Recently Updated) Upload এ ক্লিক করুন।
  • এখানে আপনাকে থিমটি ব্রাউজ করতে বলবে। Browse এ ক্লিক করে থিমটি ধরিয়ে দিন।
  • এবার আপলোড বাটনে ক্লিক করুন এবং আপলোড শেষ হওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করুন।
  • সম্পূর্ণ আপলোড শেষ হলে Active বাটনে ক্লিক করুন।
  • থিমটি সফল ভাবে ইন্সটল হয়ে গেছে, এখন আপনি সাইট ভিজিট করে দেখতে পারেন।
  • থিমে যদি কোন এডভান্স অপশন থাকে, তাহলে Appearance মেনুর ভিতরে আরেকটি নতুন মেনু দেখতে পাবেন। সেখান থেকে আপনি থিমের ফিচারগুলি কন্ট্রোল করতে পারবেন।

এই হল ওয়ার্ডপ্রেস থিম ইন্সটল। খুব সহজ মনে হচ্ছে না? আসলে ইন্সটল করার সময় আরও সহজ মনে হবে।

ওয়ার্ডপ্রেস প্লাগিন ইন্সটল পদ্ধতি

থিম তো ইন্সটল হল, এবার তাহলে চলুন কয়েকটা প্লাগিন ইন্সটল করে আসি। আপনার প্রয়োজনীয় প্লাগিন ডাউনলোড করে নিন। ড্যাসবোর্ডে যান এবং নিচের ধাপগুলি অনুসরন করুন।

  • Plugin মেনু থেকে Add new তে যান।
  • Upload অপশনে ক্লিক করুন।
  • ব্রাউজ করে প্লাগিনটি দেখিয়ে দিন এবং আপলোড এ ক্লিক করুন।
  • আপলোড শেষে Active করুন।
  • এখন একেক প্লাগিন একেক সিস্টেমে কনফিগার করতে হয়, তাই প্লাগিন এর ডকুমেন্টেশনটা অবশ্যই পরে নিন এবং প্লাগিনটা কনফিগার করে নিন।

পরবর্তীতে কিছু গুরুত্বপূর্ণ প্লাগিন কনফিগার করার নিয়মাবলী দেয়া হবে।